এসিতে বিষ্ফোরণ : রোগীদের না দেখেই ঢাকায় পাঠানোর অভিযোগ

0
231

রূপগঞ্জ প্রতিদিন ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পশ্চিম তল্লা সবুজবাগ জামে মসজিদের এয়ার কন্ডিশনার (এসি) বিস্ফোরণের ঘটনায় প্রায় ২৫ জন আগুনে দগ্ধ হয়েছেন বলে জানা গেছে।

শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাত ৯টার দিকে পশ্চিম তল্লা সবুজবাগ জামে মসজিদে এ ঘটনা ঘটে। এতে বহু হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। আহতদের বেশীরভাগই শরীরের ৯০ ভাগ পুড়ে গেছে বলে জানা যায়। এ ঘটনায় দগ্ধদের দ্রুত হাসপাতালে নেয়া হলেও ডাক্তাররা তাদের দূর থেকেই ঢাকায় প্রেরণ করতে বললেও কেউ রোগীদের ধরেননি বলে অভিযোগ রয়েছে।

ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে রোগীদের নিয়ে আসা রহমান মিয়া জানান, আমরা এলাকার মানুষরা মিলে দ্রুত যারা দগ্ধ হয়েছেন তাদেরকে নিয়ে হাসপাতালে আসি। প্রথমে খানপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তো কোন রোগীকেই রাখেনি ধরেনি তারা সদর জেনারেল হাসপাতালে প্ররণ করেন। এখানে নিয়ে আসলে রোগীদের দূর থেকেই ঢাকায় প্রেরণ করতে বলেন ডাক্তাররা। এখানে মূলত কোন ডাক্তার না নার্স কেউই রোগীদের দেখেননি, ধরেননি।

এদিকে রোগীদের নিয়ে আসার পর দেখা যায়, এখানে প্রতিটি রোগীর অবস্থাই খুব আশংকাজনক। তাদের দেহের অধিকাংশ অংশই পুড়ে গেছে। দ্রুত এসব রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিতে এলাকাবাসী সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করেন।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন জানান, অগ্নিকান্ডের ঘটনায় হতাহত এখন পর্যন্ত ২৫ জন। আমরা এখনো অনুসন্ধান করছি কিভাবে অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত হলো। মূলত এসি কিংবা ট্রান্সমিটার থেকে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে কাজ করছেন।

সিটি করপোরেশনের ১১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জমশের আলী ঝন্টু জানান, ঘটনার পর দগ্ধ রোগীরা ১০০ শয্যা হাসপাতালে আনা হলেও একজন রোগীকেও ধরে দেখা হয়নি। তারা হাসপাতালের ফ্লোরে বসিয়ে রাখা হয়। পাঠানো হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

তিনি আরো জানান, হঠাৎ বিকট শব্দে বিস্ফোরণের পরেই আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি ভেতরে একের পর এক লোকজন পড়ে আছে। ট্রান্সফরমারের ভেতরে থাকা গরম তেল ভেতরে পড়ে। সেখানে লোকজনের উপরে পরে। তাদের সকলেই দগ্ধ হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here