আধিপত্য নিয়ে হামলা আ’লীগ নেতাসহ আহত-৮

0
151

ডেস্ক রিপোর্ট : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে অপর পক্ষের আওয়ামীলীগ নেতাসহ অন্তত আট জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করেছে। এ ঘটনায় পুলিশ সারাশি অভিযান পরিচালনা করে হামলাকারী ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে। হামলাকারীদের মহড়ায় জনমনে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারী) দুপুরে উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভা এলাকায় ঘটে এ ঘটনা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সুত্র জানায়, রাজনৈতিক ও স্থানীয় বিভিন্ন কাজের আধিপত্য নিয়ে কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র আলহাজ¦ রফিকুল ইসলাম রফিকসহ তার সমর্থকদের সঙ্গে কাঞ্চন পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম রসুল কলিসহ তার সমর্থকদের দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছিলো। ওই বিরোধের জের ধরে এর আগে বেশ কয়েকবার সংঘর্ষ, হামলা-মামলা ও ধারালো অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে কাঞ্চন বাজার এলাকায় কলি বাহিনীর সদস্য আনোয়ার, খায়ের, টুটুল, লোহা শাহিন, মামুন, আব্দুল রাজ্জাক, শান্ত, আলামিন, রিফাত, উজ্জল, আমিন, ইকবাল, মনজু, রোবের, মতিউর, মাসুমসহ প্রায় ৩০/৩৫ জনের একদল দেশীয় ও ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে কলি বাহিনীর সদস্যরা কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র আলহাজ¦ রফিকুল ইসলাম রফিকের সমর্থকদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় কাঞ্চন পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শাহজাহান, আল-আমিন, আরিফ, হারেজ, রওশন আলী, সোহেলসহ অন্তত আট জন আহত হন। আহতদের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে আল-আমিনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র আলহাজ রফিকুল ইসলাম রফিক বলেন, সম্পূর্ণ অন্যায় ও পরিকল্পিত ভাবে কলি বাহিনীর সন্ত্রাসীরা আমার নিরীহ লোকদের উপর হামলা চালিয়েছে। আমি পৌরসভা এলাকায় কোন প্রকার বিশৃংখলা চাইনা। আমার পৌরবাসী যে ভাবে শান্তিতে থাকতে চায়, আমি সেই ভাবেই চালিয়ে আসছি।

এ ব্যপারে কাঞ্চন পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম রসুল কলি বলেন, আমার গাড়ির চালককে মারধর করার পর তর্কবিতর্ক ও বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএফএম সায়েদ বলেন, হামলার ঘটনাটি অত্যন্ত ন্যক্কারজনক। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে দশ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here