রূপগঞ্জ প্রতিদিনে সংবাদ প্রকাশের পর সরকারী ৫ বিঘা সম্পত্তি দখলমুক্ত করলো প্রশাসন

0
155

নিজস্ব প্রতিবেদক : রূপগঞ্জ প্রতিদিনে সংবাদ প্রকাশের পর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে হোসেন মাহমুদ নামে এক প্রভাবশালীর দখলে থাকা প্রায় ৫ বিঘা সরকারী সম্পত্তি টিনের বেষ্টুনি ভেঙ্গে দখলমুক্ত করেছে উপজেলা প্রশাসন।

বুধবার সকালে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলামের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করে সরকারী সম্পত্তি দখলমুক্ত করেন। সরকারী সম্পত্তি দখলমুক্ত করায় এলাকাবাসী উপজেলা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানান। আবার যাতে দখলমুক্ত হওয়া সম্পত্তি দখল করতে না পারে সে ব্যপারে দৃষ্টি দেয়ারও আহবান জানান এলাকাবাসী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, সার্ভেয়ার মশিউর রহমান, জামাল উদ্দিন, আব্দুল খালেক, নাজির নাসির উদ্দিন, তহসিলদার আবুল কালাম।

এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম জানান, ১নং খাস খতিয়ানভুক্ত জমি ৮২ শতাংশ ও শীতলক্ষ্য নদীর জমি মিলিয়ে প্রায় ৫ বিঘা সম্পত্তিতে স্থানীয় এলাকাবাসী সবজি, আখসহ বিভিন্ন সবজি চাষাবাদ করতো। প্রায় ৭ কোটি টাকা মুল্যেও সম্পত্তি গুলো হোসেন মাহমুদ নামের এক ব্যক্তি তার নিয়োজিত লোকজনকে দিয়ে টিনের বেষ্টুনি স্থাপন করে দখলে নিয়ে নেয়। রূপগঞ্জ প্রতিদিনে সংবাদ প্রকাশের পরে। এ ব্যপারে স্থানীয় এলাকাবাসী উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করেন। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহ নুসরাত জাহানের নির্দেশক্রমে তারা ঘটনাস্থলে পরিদর্শণ করে সত্যতা পান। তাৎক্ষনিক সরকারী সম্পত্তিতে নিষেধাজ্ঞা সাইনবোর্ড সাটিয়ে দেয়া হয়। এছাড়া ২৫ আগষ্টের মধ্যে দখল করা সরকারী সম্পত্তি দখলমুক্ত করে দেয়ার জন্য হোসেন মাহমুদ ও শাহ নেওয়াজ নামের দুই ব্যক্তি নোটিশও দেয়া হয়। নোটিশের সময় অনুযায়ী ২৫ আগস্ট বুধবার সকালে সড়েজমিনে গিয়ে টিনের বেষ্টুনি ভেঙ্গে সরকারী দখল করা ৫বিঘা সম্পত্তি দখলমুক্ত করেন তারা।

এলাকাবাসীর দাবির পরিপ্রেক্ষিতে দখলমুক্ত হওয়া সরকারী সম্পত্তিতে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া আশ্রয়ণ প্রকল্প গড়ে তোলা হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহ নুসরাত জাহান জানান, এই সরকারী সম্পত্তি দখলমুক্ত করার পর আরো অন্যান্য জায়গায় আরো সরকারী সম্পত্তি আছে কিনা তার অভিযান চলমান থাকবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রকল্প আশ্রয়নের জন্য আমাদের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। দখলমুক্ত হওয়া সরকারী সম্পত্তিতে যদি ঘর করার মতো উপযোগী হয় তাহলে আমরা জেলা প্রশাসক মহোদয়সহ উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নিবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here