তারাবতে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ, আহত-৭৫, বিস্তারিত

0
888

ডেস্ক রিপোর্ট : রায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে তারাব পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে প্রার্থীদের সঙ্গে প্রশাসনের মতবিনিময় সভা শেষে গিয়েই দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪ টা থেকে শুরু হওয়া সংঘর্ষ পুলিশের সহযোগীতায় রাত সাড়ে ৭ টায় নিয়ন্ত্রণে আসে।

সংঘর্ষে এক কাউন্সিলর প্রার্থী তার প্রতিদ্ধন্ধী কাউন্সিলর প্রার্থীর শ^শুড়ের দুটি টেক্সটাইল কারখানাসহ বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর করে। এসময় একটি পিকআপ ভ্যানে আগুন ধরিয়ে দেয়। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের প্রায় ৭৫ জন আহত হয়েছে। রাত ৮ টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার তারাব পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের নোয়াপাড়া এলাকায়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৬ জানুয়ারী তারাব পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরেপক্ষ করতে মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা মিলনায়তনে প্রতিদ্বন্দি প্রার্থীদের সঙ্গে প্রশাসনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ঐ সভায় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম, জেলা নির্বাচন অফিসার মতিয়ুর রহমানসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এ সভায় ৭ নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থী রহুল আমিন ফরাজী তার প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীর বিরুদ্ধে মৌখিক অভিযোগ তুলেন। সভা শেষে গিয়েই বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে রহুল আমিন ফরাজীর সমর্থকরা এলাকায় উটপাখি মার্কার মিছিল বের করেন। অপরদিকে আরেক কাউন্সিলর প্রার্থী আনোয়ার হোসেনের সমর্থকরা ডালিম মার্কার মিছিল নিয়ে বের হয়। এসময় দুই প্রার্থীর সমর্থকরা মুখোমুখি হলে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। এসময় দুই পক্ষই একে অপরকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেনঅ এক পর্যায়ে সংঘর্ষটি রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে পরিণত হয়।

এসময় সংঘর্ষ চলাকালে কাউন্সিলর প্রার্থী আনোয়ার হোসেনের লোকজন এসে অপর কাউন্সিলর প্রার্থী রুহুল আমিন ফরাজীর শ^শুড় মৃত কিবরিয়ার তানভীর টেক্সটাইল ও চাচা শ^শুড় আব্দুল রউফের আবির টেক্সটাইলে হামলা ও ভাংচুর চালায়। এসময় কারখানার ভেতরে থাকা ৫ টি প্রাইভেটকার, ৬ টি মোটরসাইকেল, ২ টি পিকআপসহ মোট ১১ টি গাড়ি ভাংচুর করে। একটি পিকআপে আগুন ধরিয়ে দেয়। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের গুরুতর আহত নাহিদ, মোহন, তানভীর, নূরে আলম, খোরশেদ, মারুফ, যোবায়ের, ফজর আলী, মোফাচ্ছেল, নূর আলম, শহীদুল, আরমান, আঞ্জু বেগম, মোহাম্মদ আলী, রায়হান, ওমর ফারুক, শফিকুল ইসলাম, জয়নাল, সাদেক রহমান, মতিন, মিজান, তুহিন, সামসু, আরমান, জাহাঙ্গীর, জনি, আবু বক্করসহ প্রায় ৭৫ জন আহত হয়েছে বলে জানান দুই পক্ষ। এসময় আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স, বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া আরো ৬ জনকে মুমূর্ষ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। সংঘর্ষ চলাকালে গোটা এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এসময় এলাকার দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। বর্তমানে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে নির্বাচনী এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

কাউন্সিলর প্রার্থী রহুল আমিন ফরাজী বলেন, সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে বহিরাগত সন্ত্রাসী নিয়ে আনোয়ার হোসেন আমার সমর্থকদের উপড় হামলা চালায়। তারা আমার শ^শুড় ও চাচা শ^শুড়ের টেক্সটাইল মিলে ভাংচুর, গাড়িতে আগুন, লুটপাট চালায়।

অপর, কাউন্সিলর প্রার্থী আনোয়ার হোসেন তার বিরুদ্ধে অভিযোগ মিথ্যা দাবী করে বলেন, ঐ প্রার্থীর সমর্থকরা সাউন্ড বক্স বাজিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছিলো। যা নির্বাচন আচরণবিধি লংঙ্ঘন করেছে। এর প্রতিবাদ করায় রুহুলের সমর্থকরা আমার লোকজনের উপড় হামলা চালায়।

খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৭ টার দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলার রিটানিং অফিসার মতিয়ার রহমান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আফিফা খাঁন, নারায়ণগঞ্জ সহকারী পুলিশ সুপার (গ-সার্কেল) মাহীন ফরাজী, উপজেলা নির্বাচন অফিসার মাহাবুবুর রহমান ও রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলার রিটানিং অফিসার মতিয়ার বলেন, এ ঘটনায় দুই প্রার্থীকেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। সঠিক তদন্তপূর্বক দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

জেলা ’গ’ সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার মাহিন ফরাজি বলেন, ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। দুই প্রার্থীকেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।#####

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here