মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভাইজানের বক্স অফিস পতনের দিকে
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৩, ১১:৩৪ অপরাহ্ণ

‘কিসি কা ভাই কিসি কি জান’ ছবির শুরুটা মন্দ হলেও আয়ের পালে হাওয়া লেগেছিল শনি-রবি, কিন্তু সোমবার ফের পতনের মুখে পড়ে গেলেন ভাইজান। তবু সালমান খান এটুকু প্রমাণ করলেন, তিনি এখনও বক্স অফিসে ম্যাজিক করতে সফল। তার ক্যারিশমা এখনও ফিকে হয়নি। ভক্তদের এখনও সুপারহিট ছবি উপহার দেওয়ার ক্ষমতা রাখেন তিনি।

এটাও বাস্তবতা, সোমবার এই ছবির আয়ে বড়সড় পতন দেখা গেলো। তবু মোটামুটি আয় করেছে ছবিটি। চতুর্থ দিনে ভাইজানের ছবি ১০ কোটি টাকার কিছু বেশি রোজগার করলো বক্স অফিসে।

ট্রেড অ্যানালিস্ট সাচনিলক জানিয়েছেন, এই ছবিটি মুক্তি পাওয়ার চতুর্থ দিন অর্থাৎ ২৪ এপ্রিল বক্স অফিসে ১০.৫ কোটি টাকা আয় করেছে। অর্থাৎ চার দিনে এই ছবি মোট ৭৪ কোটি টাকা আয় করলো। শুক্রবার ছবিটি ১৩ কোটি টাকা ঘরে তুলেছিল। তবে শনি (২৫ কোটি), রবি (২৬ কোটি) অনেকটাই বেড়েছিল ব্যবসা। আর সোমবার ১০.৫ কোটি আয় করলো এটি।

দেশে ৭৪ কোটি টাকা আয় করলেও বিশ্বজুড়ে কিন্তু ছবিটি ১০০ কোটির গণ্ডি টপকে গেছে।

বলিউড হাঙ্গামা সূত্রে জানা গেছে, সোমবার এই ছবির ১০ কোটির বেশি রোজগার করেছে মানে এটা সোমবারের পরীক্ষায় পাস করেছে। কিন্তু মাল্টিপ্লেক্সে এই ছবির আয় বেশ নজরে পড়ার মতো কমেছে। ফলে এই কথা মানতেই হবে যে সালমান খানের ছবিগুলো বক্স অফিসে যেভাবে পারফর্ম করে সেই অনুযায়ী এই ছবি মোটেই ভালো চলছে না। কোথাও গিয়ে যেন ফিকে হয়ে গেছে। তবে যদি আবার মহামারি পরবর্তী সময় হিসেবে দেখা যায়, তাহলে কিন্তু এই ছবির এখন পর্যন্ত ব্যবসা মন্দ হয়নি।

প্রসঙ্গত, মহামারি আসার পর থেকে বলিউডের হাতে গোনা কয়েকটি ছবিই মাত্র বক্স অফিসে ভালো পারফর্ম করেছে। কিন্তু চলতি বছর যে যে ছবিগুলো মুক্তি পেয়েছে সেগুলো এখন পর্যন্ত মোটের ওপর ভালোই লাভ করছে। ‘পাঠান’ তো ছক্কা হাঁকিয়েছিল মুক্তির পর। এই ছবি বিশ্বজুড়ে ১০০০ কোটির ওপর কামিয়েছিল। অন্যদিকে রণবীরের ‘তু ঝুঠি ম্যায় মক্কার’ও মোটের ওপর ভালোই লাভের মুখ দেখেছিল। এই ছবিটি বক্স অফিসে ১৪৭ কোটি টাকা ব্যবসা করেছিল।

বলে রাখা দরকার, প্রতিদিন এখন ‘কিসি কা ভাই কিসি কি জান’র প্রায় ১৬ হাজার করে শো চলছে। হিন্দিতে এখন এই ছবিটিই চলছে বিশ্বজুড়ে। এই ছবিতে সালমানের সঙ্গে পূজা হেগড়ে, শেহনাজ গিল, রাঘব জুয়েল প্রমুখ অভিনয় করেছেন।

আপাতত আশা করা যাচ্ছে, সালমান খানের এই ছবি ৩০০ কোটির ঘর পেরিয়ে যাবে। বিশ্বব্যাপী আয় দাঁড়াবে ৫০০ কোটির কাছাকাছি। এরপর ওটিটি ও স্যাটেলাইট রাইটস থেকেও ছবির আয় মন্দ হবে না। অন্তত ক্ষতির মুখে পড়তে হবে না সালমানের প্রযোজনা সংস্থাকে।

বছরের শেষে আসার কথা দাবাং খানের ব্লকবাস্টার ফ্র্যাঞ্চায়জি ‘টাইগার’-এর তৃতীয় পার্ট। সালমান আর ক্যাটরিনা ফিরবেন অ্যাকশন অবতারে। এবারে তো আবার টাইগারকে সঙ্গ দিতে হাজির হবেন পাঠান। মানে শাহরুখ-ভক্তদেরও সাপোর্ট পাবে ছবিটি। মানে বছর শেষে ধামাকা করতে পারেন বলিউড ভাইজান। ঠিক যে ধামাকাটা বছরের শুরুতেই করেছেন ‘পাঠান’ দিয়ে শাহরুখ খান।







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ