মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিদ্যুৎতের চাহিদার সাথে বেড়েছে লোডশেডিং
প্রকাশ: রবিবার, ০৪ জুন ২০২৩, ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ

অস্বস্তিকর গরমের সঙ্গে বিদ্যুৎ বিভ্রাটে ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ মানুষ। তাপমাত্রা বাড়তে থাকায় এই পরিস্থিতি কবে নাগাদ স্বাভাবিক হবে তা কেউ বলতে পারছে না। তবে চলতি মাসে বর্ষা শুরু হলে বিদ্যুতের চাহিদা কিছুটা কমবে বলে প্রত্যাশা বিদ্যুৎ বিভাগের।

বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে, শনিবার (৩ জুন) দুপুর ১২টায় প্রায় ১৪ হাজার (১৩৯২১) মেগাওয়াট চাহিদার বিপরীতে বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়েছে ১১ হাজার ৬৭৪ মেগাওয়াট। চাহিদার তুলনায় কম উৎপাদন হয়েছে ২ হাজার ২৪৭ মেগাওয়াট।

পিডিবি আজকের জন্য বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে দিনের বেলা ১৩ হাজার ৮০০ মেগাওয়াট আর রাতে ১৫ হাজার ৫০০ মেগাওয়াট।

এ দিকে শনিবার সকালে সাভারের বিরুলিয়ায় ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটিতে আয়োজিত এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, ‘পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রের একটি অংশ বন্ধ আছে। আগামী ৫ জুনের পর আরেকটি অংশও জ্বালানি সংকটের কারণে বন্ধ হয়ে যাবে।’

এছাড়া এলসি খুলতে দেরি হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কয়লা আমদানি করতে আরও অন্তত ২০ থেকে ২৫ দিন সময় লাগবে। কয়েকটি বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দেশে লোডশেডিং বেড়েছে। প্রায় ১ হাজার ৭০০ মেগাওয়াট লোডশেডিং চলছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘তেলের ব্যাপারেও আমরা হিমশিম খাচ্ছি। এখন ইন্ডাস্ট্রিতে ডাইভার্ট করছি বেশিরভাগ গ্যাস। আর গরম বেড়ে গেছে, ৩৮ ডিগ্রির উপরে চলে গেছে, কোনও কোনও জায়গায় ৪০-৪১ ডিগ্রি হয়ে গেছে। এতে বিদ্যুতের চাহিদা বেড়েছে, ফলে লোডশেডিংও বেড়েছে। কিছু দিন এ পরিস্থিতি থাকবে।’

গত কয়েক দিন ধরেই দেশে চাহিদার তুলনায় আড়াই হাজার মেগাওয়াটের মতো বিদ্যুৎ উৎপাদন কম হচ্ছে। দেশে বিদ্যুতের উৎপাদন ক্ষমতা ২৪ হাজার ১৪৩ মেগাওয়াট। চাহিদা ১৬ হাজার ৫০০ মেগাওয়াটের মতো হলেও ১৪ হাজার ৪০০ মেগাওয়াটের বেশি উৎপাদন করা যাচ্ছে না। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে জ্বালানি সংকট আর দেশে আমদানি করার মতো ডলারের অপ্রাপ্যতার কথা সরকারের তরফ থেকেই জানানো হয়েছে।

এদিকে বর্ষা না আসা পর্যন্ত আবহাওয়া এমনই থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। আজ বেলা ৩টা পর্যন্ত দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে রাজশাহীতে ৪০ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ঢাকায় ৩৬ দশমিক ৭, রংপুরে ৩৭ দশমিক ৪, ময়মনসিংহে ৩৬ দশমিক ৫, সিলেটে ৩৪ দশমিক ৬, চট্টগ্রামে ৩৪ দশমিক ৩, খুলনায় ৩৮ এবং বরিশালে ৩৬ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

 







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ