সোমবার ১৫ এপ্রিল ২০২৪ ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গ্রীষ্মকে হার মানাচ্ছে শ্রাবণের তাপমাত্রা
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ০১ আগস্ট ২০২৩, ০৯:৩০ অপরাহ্ণ

প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বইছে দাবদাহ। শ্রাবণের এই তীব তাপপ্রবাহ যেন গ্রীষ্মকেও হার মানিয়েছে। মাঝে মাঝে ছিটেফোঁটা বৃষ্টিতে গরম যেন আরও বেড়ে যাচ্ছে। একদিকে কয়েক দিন ধরেই বাড়ছে তাপমাত্রা, অন্যদিকে নানা অঞ্চলে বৃষ্টিও হচ্ছে হালকা থেকে মাঝারি। কিন্তু এই বৃষ্টি কমাতে পারছে না গরমের তীব্রতা। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, যে পরিমাণ বৃষ্টির প্রয়োজন তা না হওয়ার কারণেই এই তীব্রতা বাড়ছে। এই অবস্থায় চলতি মাসের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি থাকতে পারে বলে আবহাওয়া অধিদফতরের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বলেন, এখন বৃষ্টি কম হচ্ছে। এদিকে বাতাসে আর্দ্রতা বেশি, জলীয়বাষ্পের পরিমাণ বেশি। এতে গরমে ঘাম শুকাচ্ছে না। মানুষের গরমের অনুভূত বেশি হচ্ছে। যে পরিমাণ তাপপ্রবাহ বইছে তাতে পর্যাপ্ত বৃষ্টি না হলে এই গরম কমবে না।

আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়, আগস্ট মাসে দেশে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। বঙ্গোপসাগরে এক থেকে দুটি বর্ষাকালীন লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। যার মধ্যে একটি মৌসুমি নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে। এরমধ্যে একটি ইতোমধ্যে আজই উপকূল অতিক্রম করতে শুরু করেছে। দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে দুই থেকে তিন দিন বিজলি চমকানোসহ মাঝারি ধরনের বজ্রঝড় এবং সারা দেশে তিন থেকে চার দিন বিজলি চমকানোসহ হালকা বজ্রঝড় হতে পারে। দেশে বিচ্ছিন্নভাবে মৃদু (৩৬ ডিগ্রি থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) তাপপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। এ মাসে দিন ও রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি থাকতে পারে।

এদিকে আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, বর্তমানে চট্টগ্রাম, চাঁদপুর, নোয়াখালী, কুমিল্লা, ফেনী ও ভোলা জেলাসহ রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা ও সিলেট বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তবে আজকের নিম্নচাপের প্রভাবে বৃষ্টি হতে পারে। পূর্বাভাস অনুযায়ী, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং ঢাকা, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে। এতে যেসব এলাকায় তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে তা কিছুটা কমে আসতে পারে।

আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ বলেন, চলতি মাসে স্বাভাবিক বৃষ্টি হতে পারে। কিন্তু সে বৃষ্টিতে তাপমাত্রা খুব একটা নাও কমতে পারে। হালকা বৃষ্টির কারণে মাটি থেকে এক ধরনের গরম বের হচ্ছে। এতে গরমের অনুভূতি আরও বেড়ে যাচ্ছে। পর্যাপ্ত বৃষ্টি ছাড়া এই গরম কমবে না।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল চুয়াডাঙ্গায় ৩৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল যা ছিল ফেনী ও রংপুরে ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অর্থাৎ একদিনের ব্যবধানে তাপমাত্রা বেড়েছে এক ডিগ্রির বেশি।

এছাড়া ঢাকায় ছিল ৩৬ দশমিক ৭, আজ তা বেড়ে ৩৭ দশমিক ১; রাজশাহীতে ছিল ৩৬ দশমিক ৬, আজ তা প্রায় একই ৩৬ দশমিক ৫; রংপুরে ছিল ৩৭, আজও আছে ৩৭; ময়মনসিংহে ছিল ৩৫ দশমিক ৮, আজ তা বেড়ে ৩৭; সিলেটে ছিল ৩৬ দশমিক ২, আজ তা কিছুটা বেড়ে ৩৬ দশমিক ৬; চট্টগ্রামে ছিল ৩৫ দশমিক ২, আজ তা বৃষ্টির কারণে কিছুটা কমে ৩৪ দশমিক ১; খুলনায় ছিল ৩৫ দশমিক ৭, আজ তা বেড়ে ৩৭ এবং বরিশালে ছিল ৩৪ দশমিক ৮, আজ তা কিছুটা বেড়ে ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয়েছে।

 







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ