মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কোরবানির নিয়তে পোষা প্রাণী বিক্রি করা যাবে?
প্রকাশ: বুধবার, ১৪ জুন ২০২৩, ০৫:১৫ অপরাহ্ণ

কোনও ব্যক্তির কাছে সাড়ে সাত তোলা স্বর্ণ বা সাড়ে বায়ান্ন তোলা রৌপ্যের মূল্যের সমপরিমাণ টাকা থাকলে সে ব্যক্তির ওপর কোরবানি করা ওয়াজিব। ১০ জিলহজ ফজর থেকে ১২ জিলহজ সন্ধ্যা পর্যন্ত সময়ের মধ্যে কেউ এই টাকার মালিক হলে তার ওপর কোরবানি ওয়াজিব।

কোরবানির জন্য বেশির ভাগ মানুষই বাজার থেকে পশু ক্রয় করে থাকেন। তবে দেশের গ্রামাঞ্চলসহ বিভিন্ন এলাকায় কোরবানিকে কেন্দ্র করে পশু লালন-পালন ও পোষার প্রচলন আছে।

পোষা গরু কোরবানির নিয়ত করলেই এর মাধ্যমে কোরবানি করা আবশ্যক হয়ে যায় না। কোনও কারণে কোরবানির আগে কোরবানিদাতা ঋণগ্রস্ত হয়ে গেলে সেই পোষা প্রাণী বিক্রি করে ঋণ পরিশোধ করতে পারবে।

তবে যদি ঋণ পরিশোধের পর আবার কোরবানি ওয়াজিব হওয়ার মতো সম্পদ হাতে আসে অথবা সেই ব্যক্তির ওপর আগে থেকেই কোরবানি ওয়াজিব হয়ে থাকে, তাহলে অন্য আরেকটি পশু দিয়ে কোরবানি আদায় করতে হবে। আর যদি এই পরিমাণ সম্পদ না হয় বা কোরবানি আর ওয়াজিব না হয়, তাহলে তাকে কোরবানি দিতে হবে না।

এক্ষেত্রে আরেকটি বিষয় লক্ষণীয় হলো- কেউ যদি পোষা প্রাণীর মাধ্যমে কোরবানি করার মান্নত করে থাকে, তাহলে তা দিয়েই কোরবানি করতে হবে। একে বিক্রি করতে পারবে না। (ফতোয়ায়ে হিন্দিয়া, ৫/২৯১, হেদায়া, ৪/ ৪৪৩)







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ