সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অসংখ্য ক্লাস্টার বোমা ব্যবহার করবে রাশিয়া
প্রকাশ: সোমবার, ১৭ জুলাই ২০২৩, ১১:১৫ পূর্বাহ্ণ

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন হুমকি দিয়ে বলেছেন, রাশিয়ার কাছেও পর্যাপ্ত ক্লাস্টার বোমার মজুত রয়েছে ও প্রয়োজনে সেগুলো ব্যবহারের অধিকার রাখি। তবে এ ধরনের বোমার ব্যবহারকে তিনি অপরাধ বলেও মনে করেন।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুলাই) ইউক্রেন জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া ক্লাস্টার বোমার চালান তাদের কাছে পৌঁছেছে। কিয়েভের দাবি, ইউক্রেনের ভূখণ্ডে অবস্থানরত রুশ সেনাদের হটাতে এ বোমা ব্যবহার করা হবে। তবে তারা কোনোভাবেই এসব বোমা রাশিয়ার ভূখণ্ডে ব্যবহার করবে না।

ইউক্রেনের এমন অবস্থানের বিপরীতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত সম্প্রচারমাধ্যম মস্কো টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, প্রয়োজনে রাশিয়াও এমন অস্ত্র ব্যবহার করে জবাব দেবে।

পুতিন বলেন, আমি জানিয়ে দিতে চাই, রুশ ফেডারেশনের কাছেও বিভিন্ন ধরনের ক্লাস্টার বোমার পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে। আমরা এখনো সেগুলো ব্যবহার করিনি। তবে ইউক্রেন যদি এ ধরনের বোমা আমাদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করে, তাহলে আমাদেরও পাল্টা ব্যবস্থা নেওয়ার অধিকার রয়েছে।

সাক্ষাৎকারে পুতিন বলেন, তিনি ক্লাস্টার বোমার ব্যবহারকে অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করেন ও অতীতে গোলাবারুদের সমস্যা সহ্য করেও রাশিয়ার এখনো সেগুলো ব্যবহার করেনি।

এদিকে, টেসলা ও স্পেসএক্সের প্রধান ইলন মাস্ক বলেছেন, বিশ্বের অধিকাংশ দেশে নিষিদ্ধ ঘোষিত ক্লাস্টার বোমা ইউক্রেনকে দেওয়ার মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র নিজেকেই অপমানিত করেছে। এই বোমা চলমান ইউক্রেন সংকট সমাধানে তেমন কোনো ভূমিকাই রাখবে না।

শনিবার (১৫ জুলাই) এক টুইট বার্তায় ইলন লেখেন, ইউক্রেনে পাঠানোর মতো স্বাভাবিক গোলাবারুদ ফুরিয়ে গেছে। তাই এখন আমরা সেখানে ক্লাস্টার বোমার মতো পুরোনো অস্ত্র পাঠাচ্ছি। এর অর্থ হলো, ইউক্রেন পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন আনতে না পারা ও এর মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র নিজেই নিজেকে অপমান করেছে।

সূত্র: সিএনএন

 







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ