দাউদপুরে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের বাড়িঘরে হামলায় আহত-৫

0
102

নিউজ ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে দাউদপুর ইউনিয়নের নির্বাচন পরবর্তী ২ নং ওয়ার্ডের খৈসাইর এলাকায় সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রতিপক্ষের বাড়ি ঘরে হামলায় গুরুতর আহত হয়েছে ৫ জন।

২০ অক্টোবর ইউপি নির্বাচনের দিন দুপুরে ভোটার লাইন নিয়ে বিতর্কের জেরে শুরু হওয়া হামলার পর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পরের দিনও ২১ অক্টোবর সকালে ও দুপুরে দফায় দফায় চলে হামলা, ভাংচুরের ঘটনা। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

হামলার শিকার হওয়া খৈসাইর এলাকার বাসিন্দা দাউদপুর ইউনিয়র যুবলীগ নেতা মাহমুদুর রহমান লিখন জানান, নির্বাচনের দিন আরিফ মেম্বারের প্রতীক ফুটবল প্রতীকের পক্ষে ভোট চাওয়া ও কেন্দ্রে ভোটার লাইন ধরা নিয়ে বিতর্কের জেরে ভোট দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে আবুল হোসেনের মোড়গ প্রতীকের সমর্থক একই এলাকার ল হারিসুল, সামসুল, নজরুল ও গোলজার, জাইদুল, সাহেদ ও ছোটন স্থানীয় রায়হান , আমিনুল, ইয়াদুলসহ অজ্ঞাত লোকজন কিছু বুঝে ওঠার আগেই দেশীয় অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হামলা চালায়। এ সময় এলোপাতারি কুপিয়ে জখম করে তারা। এতে আরিফের ফুটবল প্রতীক সমর্থক খৈসাইর এলাকার মৃত শহীদ মিয়ার ছেলে ইয়াসিন, মুজিবুর রহমানের ছেলে সোহেল, জওহর আলীর ছেলে রাকিব, সুমন মিয়ার ছেলে জনি মিয়াসহ ৫জনের অধিক আহত হয়। এদের মাঝে ইয়াসিনের মাথায় কুপিয়ে জখম করার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজে প্রেরণ করা হয়েছে।

অন্য আহতরা কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়েরের জেরে পরের দিন ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মাহমুদুর রহমান লিখনের বাড়িতে হামলা করে ওই প্রতিপক্ষের লোকজন।

এর আগে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ রাখতে ওই ভ্রাম্যমান টীমের ম্যাজিস্ট্রেট উজ্জল মিয়া টিয়ারসেল নিক্ষেপের নির্দেশ দিলে দায়িত্বরত পুলিশ ইন্সপেক্টর সাইফুল ইসলাম(ডিবি)’র নেতৃত্বে ৩ রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেপ করা হয়। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এ ঘটনার সততা স্বীকার করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ডিবি ইন্সপেক্টর সাইফুল ইসলাম।

এ বিষয়ে রূপগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসান বলেন, হামলার ঘটনা জেনেছি। অভিযোগও পেয়েছি। ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here