শত প্রতিকূলতার মধ্যেও রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব সুসংগঠিত : অপপ্রচারে কান না দেয়ার আহবান

0
145

 নিউজ ডেস্ক : রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটি সভাপতির দায়িত্বে আছেন দেশের প্রখ্যাত কলামিস্ট মীর আব্দুল আলীম। যিনি প্রতিনিয়ত দেশ-বিদেশের পত্র পত্রিকাগুলোতে সুনামের সাথে কলাম লিখেছেন। আন্তর্জাতিক শান্তি নিকেতন পদকসহ বহু পদক পেয়েছেন তিনি। উপদেষ্টা মন্ডলীতে রয়েছেন প্রবীণ সাংবাদিক দৈনিক সংবাদ এর সিনিয়র সহ সম্পাদক আলম হোসেন, রূপগঞ্জের প্রিয় মানুষ বাংলাদেশ প্রতিদিনের চিফ রিপোর্টার মনজুর হোসেন, প্রবীণ সাংবাদিক মনির হোসেন মনু এবং মাসুদ করিম।

ক্লাবটি জাতীয় এবং স্থানীয় ৬৭জন সাংবাদিকদের সমন্বয়ে নিয়মতান্ত্রিকভাবে পরিচালিত হয়ে আসছে। বহুবছর সকল সাংবাদিকদের একত্রে চলা প্রতিষ্ঠানটি বরাবরই সন্ত্রাসী এবং রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়েছে। ভাঙ্গনের চেষ্টা করা হয়েছে বহু বারবার। শত ঝড় প্রতিকূলতার মধ্যেও সাংবাদিকরা সুসংগঠিত রয়েছে। এটি দেশের মধ্যে আঞ্চলিক ক্লাব হিসেবে বিরল ঘটনা। ক্লাবটি এখনো রূপগঞ্জের অসহায় মানুষের আশ্রয় স্থল। যা রূপগঞ্জবাসি অবহিত আছেন। ক্লাবের সভাপতির কাছে অসহায় নির্যাতিত মানুষ সবসময়ই আশ্রয় পেয়েছেন। এ ক্লাবের সদস্যরা শুধু লেখা লেখির মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকেন না। সামাজিক আন্দোলন শীতলক্ষ্যা বাঁচাও আন্দোলন, বৃক্ষরোপণ, বাল্যবিবাহ, মাদক বিরোধী বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে রূপগঞ্জবাসি এবং দেশবাসীর দৃষ্টি আর্কষণ করতে সক্ষম হয়েছে।

সকল নিউজ অত্যন্ত সাহসিকতার সাথে দৈনিক যুগান্তর, জনকন্ঠ, সমকাল, ইনকিলাব, বাংলাদেশ প্রতিদিন, কালেরকণ্ঠসহ সকল পত্রিকা এবং টিভি চ্যানেলগুলোতে প্রচার প্রকাশ করেছেন রূপগঞ্জের সাংবাদিকরা। যার কারণে অনেকের চক্ষুশূল এই প্রেসক্লাব। ক্লাবের কোন সদস্য অনিয়মে জড়িত থাকলে সাময়িক বহিষ্কার এবং স্থায়ী বহিষ্কারও হয়েছেন। এদের দু’একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী মদদদাতাদের ইশারায় ক্লাবের সুনাম নষ্ট করতে ফেসবুকে অপপ্রচার চালাচ্ছে যা আমাদের দৃষ্টিতে এসেছে। ক্লাবের ৬৭ জন সাংবাদিক এখনো ক্লাবটি প্রতি আস্থাশীল থেকে তাদের লেখালেখির কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। সাংবাদিকতার ব্যাপারে সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড ছাড়া সংবাদ প্রকাশে কোন প্রকার হস্তক্ষেপ নেই সদস্যদের উপর।

একজন বহিস্কৃত সাংবাদিক জনাব মকবুল হোসেন ভূঁইয়া (যিনি পূর্বে রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি দায়িত্বে ছিলেন) আরো তিনজন ক্লাবের সদস্য নন কিন্তু ক্লাবে আসা-যাওয়া করতেন দুলাল হোসেন ভূঁইয়া (কোন পত্রিকায় কর্মরত নন বলেই জানি), রাসেল মাহমুদ(ভোরের ডাক) এবং রুবেল মাহমুদ (সময়ে আলো) ফেসবুক লাইভে এসে বলেছেন তারা স্বাধীন সাংবাদিকতা করতে পারেননি। আপনারা জানেন এখন সংবাদ প্রেরণের মাধ্যম হলো ই-মেইল। যারা বিষয়টি বিশ্বাসযোগ্য মনে করছেন তাদেরকে বিনীত অনুরোধ করছি তাদের ল্যাপটপ, তাদের নিজস্ব ই-মেইল এবং তাদের সংশ্লিষ্ট পত্রিকার ইমেইল খতিয়ে দেখলেই বোঝা যাবে তারা স্বস্ব দায়িত্ব পালন করেছেন কিনা।

ই-মেইল মুছে ফেলার কোন সুযোগ নেই। এটা প্রমাণ যোগ্য বিষয়। তারা তাদের নিজস্ব মেইল থেকে সংবাদ পরিবেশন করেছেন। সাংবাদিকদের সুবিধার্থে প্রেসক্লাবে কম্পিউটার এবং ইমেইল ব্যবহারের সুবিধা রয়েছে। যাকিনা দায়িত্বরত সাংবাদিকরা ব্যবহার করতে পারেন। এটা তাদের কেবল ইচ্ছার বিষয়। তারা প্রেসক্লাব সম্পর্কে আরো অপপ্রচার করেছেন যার সত্যতার সাক্ষী রূপগঞ্জবাসিই মনে করি। জনগণকে হয়রানি এবং দুর্নীতির অভিযোগের প্রেক্ষিতেই রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব তাদের কাছ থেকে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে। সর্বশেষ ভোরের কাগজের সাংবাদিক পুত্র রিফাত হত্যার আসামিদের কাছ থেকে তাদের মোটা অঙ্কের ঘুষ গ্রহণ এবং আঁতাতের অভিযোগ ছিল সাংবাদিকদের জন্য অত্যন্ত বেদনাদায়ক।

অসংখ্য অভিযোগের প্রেক্ষিতেই মকবুল হোসেন বহিষ্কৃত হয়েছেন। মিথ্যা দিয়ে রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব এবং স্বনামধন্য কলামিস্ট মীর আলীম এর সুনাম ক্ষুন্ন করার কোন সুযোগ নেই। কারণ সাধারন মানুষ বিষয়টি সম্পর্কে অনেক অবগত রয়েছেন। এদিকে মকবুল হোসেনসহ অন্য তিনজনের অপপ্রচারের প্রেক্ষিতে রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের ক”জন সদস্য ব্যক্তিগতভাবে ফেসবুকে তাদের বিষয়ে নানা মন্তব্য করে যাচ্ছেন, যা আমাদের দৃষ্টিতে এসেছে। সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা, সাংবাদিকরা চাইলেই যা ইচ্ছা তা করা উচিত নয়। এতে প্রকৃত সাংবাদিকদের সুনাম ক্ষুন্ন হয়।

কেউ অপপ্রচার করলে আপনিও সেভাবে ফেসবুকে অপপ্রচারে লিপ্ত হবেন সেটা সঠিক নয় ,এটা সাংবাদিকদের কাজ নয়। আমরা এও দেখেছি তাদের মতো করেই “বদমাইশ”, চোর, ডাকাতসহ আরো কুরুচিশীল ভাষা ব্যবহার করছেন কয়েকজন সাংবাদিক। কারো বিরুদ্ধে নানা অভিযোগে মামলা মোকদ্দমা থাকতে পারে সেটা আদালতের বিষয়। এসব ব্যক্তিগত বিষয়ে রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের কোন সদস্য প্রচার অপপ্রচার চালানো থেকে বিরত থাকবেন। সাংবাদিকদের ভাষা মার্জিত এবং গঠনমূলক হবে। ফেসবুকে গালমন্দ করা সাংবাদিকতার নিয়মে পড়ে না এবং এটা ভালো মানুষের কাজ নয়। প্রিয় সাংবাদিক ভাইদের এ ব্যাপারে শান্ত থাকার বিনীত অনুরোধ রইলো। রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here