দিনে পরীক্ষাগারে, রাতে অসহায়দের পাশে তারা

0
198

নিউজ ডেস্ক : বলা হয়ে থাকে মানবসেবা পরমধর্ম। করোনাকালীন সময়ে সে কথাটির যেন বাস্তবে রূপ দিচ্ছে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। তেমনই এক মানবসেবার এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কয়েকজন তরুণ। নাম ”তানজিল হাসান”। দেশের প্রথম বেসরকারি করোনা পরীক্ষাগার গাজী পিসিআর ল্যাবে শুরু থেকেই সহকারী ল্যাব ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছে তানজিল হাসান। রূপগঞ্জ উপজেলার রূপসী এলাকায় জন্ম তানজিলের। গাজী পিসিআর ল্যাবে তানজিল ছাড়া আরো ৪ নমুনা পরীক্ষার কাজ করেন। তানজিল হাসান ছাড়া বাকীরা রূপগঞ্জের বাইরের বাসিন্দা।

তানজিল হাসান রূপগঞ্জের সন্তান হওয়ায় এখানকার মানুষের প্রতি রয়েছে তার অগাধ ভালবাসা। তাইতো সারাদিন ব্যাপী করোনা পরীক্ষাগারে নমুনা পরীক্ষার কাজ শেষে রাতের আধারে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন দুস্থ্য ও অসহায় মানুষ গুলোর ঘরে ঘরে। এছাড়া তানজিল হাসান ও তার সহকর্মী তানজিল আহসান অভিসহ তাদের কয়েকজন সহকর্মী ডাক্তার মিলে নিয়েছেন এ অনন্য উদ্যোগ। রূপগঞ্জের মানুষের জন্য ব্যবস্থা করেছেন করোনাকালীন টেলিমেডিসিন সেবা। যার মাধ্যমে সাধারণ মানুষ ঘরে বসেই পাচ্ছেন চিকিৎসা সেবা। সারাদিন সাধারণ মানুষকে সেবা দেওয়ার পর যখন চোখে মুখে ক্লান্তি ভর করে তখনও তারা দুস্থ্য ও অসহায় মানুষ গুলো কথা ভেবে ক্লান্তি ঝেরে ফেলে বেরিয়ে পড়েন রাস্তায়। এ যেন এক অনন্য মানবতার উধাহরণ। তাদের এ মানবিক এ মানবিক কাজে এগিয়ে এসেছে তাদের অন্যান্য সহকর্মী ডাক্তাররাও।

জানা যায়, তানজিল হাসান ও তানজিল আহসান অভি দুজনেই উপজেলার রূপসী এলাকার বাসিন্দা। এমবিবিএস পাশ করার দুইজনেই স্থানীয় ইউএস বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শিক্ষকতা করছেন। তাদের দুজনেরই ছোটবেলা থেকে স্বপ্ন ছিল সাধারণ মানুষের জন্য করার। এ কারণেই তারা ডাক্তার হওয়াকে পেশাকে বেঁছে নিয়েছেন। গত ৩০ এপ্রিল গাজী গ্রুপের অর্থায়নে রূপগঞ্জ উপজেলায় দেশের প্রথম বেসরকারি করোনা পরীক্ষা চালু করা হয়। ল্যাব প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই তানজিল হাসান করোনা পরীক্ষাগারে সহকারী ল্যাব ইনচার্জ হিসেবে কাজ করে চলছেন। আর তানজিল আহসান অভি ২৪ ঘন্টাই সাধারণ মানুষকে টেলিমেডিন সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। সারাদিনের ব্যস্ততা শেষ করে রাতের বেলা কখনো নিজেরা আবার কখনো সেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে অসহায়দের ঘরে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন। এছাড়া সাধারণ মানুষকে মাষ্ক ব্যবহারে সচেতন করতে তারা প্রতিটি মসজিদে লিফলেট বিতরণ করছেন। এরই মাঝে সাধারণ মানুষের জন্য তিন হাজার মাষ্ক বিতরণের ব্যবস্থা করেছে। আর ২ শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন। এসকল মানবিক কাজকে সাধুবাদ জানিয়ে এগিয়ে তাদের সঙ্গে সাহায্যে হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মীর আব্দুল আলীম, গাজী গ্রুপের উপ-ব্যবস্থপনা পরিচালক গোলাম মর্তুজা পাপ্পা ও স্থানীয় ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান হাবিবসহ অনেকে।

ডা. তানজিল হাসান  বলেন, রূপগঞ্জে করোনা পরীক্ষাগার চালু হওয়ায় রূপগঞ্জবাসী অনেক উপকৃত হচ্ছে। রূপগঞ্জের নমুনা অন্য কোথাও পাঠাতে হচ্ছে না গাজী পিসিআর ল্যাবেই পরীক্ষা করা যাচ্ছে। গাজী পিসিআর ল্যাবে এ পর্যন্ত রূপগঞ্জ, আড়াইহাজার, সোনারগাঁও ও ঢাকাসহ আশপাশের প্রায় ১৮ হাজার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। রূপগঞ্জের সন্তান হওয়ার সুবাদে এখানকার মানুষের জন্য কিছু করা আমার দায়িত্ব বলে মনে করি। যেহেতু এখনো করোনার ভেক্সিসিন আবিষ্কার হয়নি সে কারণে সকলকে সচেতন থাকতে হবে। ভেক্সিন আসার আগ পর্যন্ত করোনা নিয়ন্ত্রণে মাষ্ক পড়াই হচ্ছে সর্বোত্তম পদ্ধতি।

ডা. তানজিল আহসান অভি  বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতীক) এর নির্দেশনায় আমিসহ আমরা কয়েকজন সহকর্মী মিলে করোনাকালীন সময়ে সাধারণ মানুষকে টেলিমেডিসিন স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছি। এতে করে সাধারণ মানুষ উপকৃত হচ্ছে। এছাড়া সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে লিফলেট ও মাইকিং এর মাধ্যমে প্রচারনা চালানোর ব্যবস্থা করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here