স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলছে মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিবহণ

0
287

জাহাঙ্গীর মাহমুদ : দেশে গত কয়েকদিন ধরে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় নড়েচড়ে বসেছে সরকার। চলছে ৭ দিনের লকডাউন। ঠিক এরই মধ্যে লগডাউনে গণপরিবহন বন্ধের ঘোষণা দেন সরকার।সরকারের ঘোষিত লকডাউন ও গণপরিবহন বন্ধের নির্দেশনাকে অপেক্ষা করে অবৈধভাবে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিবহণ চলাচলের অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার (০৯ এপ্রিল) জেলার রূপগঞ্জ উপজেলার গাউছিয়া বাসস্ট্যান্ড, বরপা, রূপসী, তারাব বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ডসহ সরেজমিনে মাস্ক বিহীন অনেককে ঘুরতে দেখা। গনপরিবহন বন্ধ থাকার কথা থাকলেও মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিবহন চলাচল করতে দেখা গেছে স্বাস্থ্যবিধির ছিটেফোঁটা ছাড়াই। পরিবহনগুলোতে ওঠার জন্য যাত্রীরা কোন সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখেই গণপরিবহনে যাতায়াত করছে। মানছেন না স্বাস্থ্যবিধি এমন চিত্র দেখা গেছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদফতর, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও সচেতন মহল থেকে বারবার বলা হচ্ছে- স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। অথচ স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলছে অধিকাংশ মানুষ। বিশেষ করে গণপরিবহনের চিত্র একেবারেই উলটো। সেখানে চালক, সহকারী ও অধিকাংশ যাত্রী মাস্ক পরেন না। আবার অনেকে মাস্ক পরলেও তা থুতনিতে ঝুলিয়ে রাখে। এক সিটে একজন রাখার শর্তে ৬০% ভাড়া বাড়ানো হয় তবে বর্ধিত ভাড়া বেশি নিয়েও দেখা গেছে দাঁড় করিয়ে যাত্রী নিয়ে বাস চলছে। এ পরিস্থিতিতে গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করা জরুরি বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিবহনের যাত্রী আতাউর রহমান বলেন, সরকারের ঘোষিত লকডাউন আবার ৬০% ভাড়া বাড়ানো হয় এ বাস চলছে ভাড়া বেশিতো নিচ্ছেন কিন্তু স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে প্রতি সিটে একজন করে যাত্রীতো নিতেছে তার উপর দাঁড় করিয়ে যাত্রী নিচ্ছেন তারা। ভাড়া বেশি নিয়েও যদি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে তবে কোন আপত্তি ছিলোনা। এসব বিষয়ে যাত্রীরা কথা বললেই ড্রাইভার-সহকারী যাত্রীদের সাথে খারাপ আচরণ করেন। আমি গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে সংশ্লিষ্ট আইন শৃংখলা বাহিনীর অভিযান পরিচালনা করার দাবী জানাই।

মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিবহণের চালক নাম বলতে রাজি হননি, তবে মাস্ক থুতনিতে রাখার ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, মাস্ক তো পড়ি পুলিশের ডরে। নাইলে দেশে আবার করোনা আছেনি। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে যাত্রী উঠানোর কারণ জিজ্ঞাসা করলে তিনি এত স্বাস্থ্যবিধি মাইন্না কি অইবো।

এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ নুসরাত জাহান বলেন, গণপরিবহন সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী বন্ধ থাকার কথা। যদি মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিবহন স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলাচল করছে এমন নির্দিষ্ট অভিযোগ পাই তবে সেখানেও অভিযান পরিচালনা করা হবে। মানুষকে সচেতনতার বৃদ্ধির জন্য প্রতিদিনই অভিযান পরিচালনা করে আসছি। এমনকি মাস্ক না পড়ায় জরিমানাও করা হচ্ছে। তারপরও যদি আমরা নিজেদের থেকে সচেতন না হই তবে করোনার ছোবল থেকে মুক্তি পাওয়া অসম্ভব হয়ে দাঁড়াবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here