মাথা গোজার ঠাঁই পাচ্ছে রূপগঞ্জের ১৫০ পরিবার

0
323

ডেস্ক রিপোর্ট : নীল টিনের চালা। ছোট ছোট ঘর। শীতলক্ষ্যা নদের তীর ঘেঁষা এমন সুন্দর সুসজ্জিত ঘরগুলো যে কারো মন কাড়বে। প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে রূপগঞ্জ উপজেলায় ভূমি ও গৃহহীনদের জন্য ‘স্বপ্ননীড়’ নির্মাণ করা হচ্ছে। এতে উপজেলার ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারগুলোর ভাগ্য বদলে যাবে। তারা পাবে মাথা গোজার ঠাঁই। আগামী ২৩ জানুয়ারী ভূমিহীন ১৫০ টি পরিবারকে তাদের ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হবে। পর্যায়ক্রমে আরো ৩৪৮ জন ভূমিহীন পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর ঘর দেওয়া হবে। আগামী ২০ জানুয়ারী আশ্রায়ণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মোঃ মাহবুব হোসেনের (অতিরিক্ত সচিব} নেতৃত্বে একটি দল রূপগঞ্জের মুড়াপাড়া আশ্রায়ণ প্রকল্প পরিদর্শনে আসবেন।

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ১৫০টি পরিবারের জন্য পুরোদমে সরকারি খাস জমিতে গৃহ নির্মাণের কাজ চলছে। অধীর আগ্রহে উপকারভোগীরা সময় পার করছেন কখন তাদের স্বপ্নের গৃহে উঠবেন। ‘আশ্রয়ণের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার’ মুজিববর্ষে রূপগঞ্জের উপজেলায় গৃহহীন ও ভুমিহীন মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আবাসন হিসেবে প্রদত্ত খাস জমিতে গৃহ নির্মাণের কাজ করছে রূপগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন।

রূপগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, মুড়াপাড়া ইউনিয়নের ব্রাক্ষ্মণগাঁও গ্রামে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ি রূপগঞ্জে ১৫০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য গৃহ নির্মাণ কাজ চলছে। আগামী ২০ জানুয়ারির মধ্যে কাজ সম্পন্ন করে হস্তান্তর করা হবে।

সূত্রটি আরো জানায়, উপকারভোগীদের ২ শতাংশ জমি দিয়ে ঘর তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। দুই কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি আধাপাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। সবগুলো বাড়ি সরকার নির্ধারিত একই নকশায় হচ্ছে। রান্নাঘর, সংযুক্ত টয়লেটসহ অন্যান্য সুবিধা থাকছে এসব বাড়িতে। প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় সরকারি খাস জমিতে এসব ঘর নির্মানের কাজ শেষ পর্যায়ে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বরাদ্ধপ্রাপ্ত গৃহহীন ও ভূমিহীনদের তালিকাও ইতোমধ্যে তৈরি করা হয়েছে। আগামী ২৩ জানুয়ারি সারাদেশে একযোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক উদ্বোধনের পরপরই স্বপ্ননীড়ের ঘরগুলো গৃহহীন ও ভূমিহীনদের মধ্যে হস্তান্তর করা হবে।

উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মশিউর রহমান ও সার্ভেয়ার জামাল হোসেন জানান, প্রাথমিক পর্যায়ে মুড়াপাড়া ইউনিয়নের মঠির ঘাট এলাকায় ২০ টি পরিবারের জন্য ঘর তৈরি করা হয়েছে। আর কাঞ্চন পৌরসভার কেন্দুয়া এলাকায় আরো ১৩০ টি পরিবারের জন্য ঘর তৈরি করা হয়েছে। গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের আধুরিয়া এলাকায় ৫০ টি পরিবারের ঘর নির্মাণের জন্য জায়গা বরাদ্দ করা হয়েছে। বাকী পরিবারগুলোর জন্য জায়গা খোঁজা হচ্ছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম জানান, প্রতিটি পরিবারের জন্য দুই শতাংশ খাস জমি বরাদ্ধ দিয়ে ঘর তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। বাথরুম, গোসলখানা,বারান্দাসহ দুই কক্ষ বিশিষ্ট প্রতিটি আধাপাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় এক লাখ ৭১ হাজার টাকা।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আফিফা খান রূপগঞ্জ প্রতিদিনকে বলেন, আগামী ২৩ জানুয়ারী সারাদেশে ভূমিহীনদের ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হবে। আর ২০ জানুয়ারী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রায়ণ প্রকল্পের পিডি স্যার মুড়াপাড়া পরিদর্শনে আসবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here